অক্ষরজ্ঞানও ছিল না অথচ সেইই ডিহি ইউনিয়ন পাবলিক লাইব্রেরিকে জমি দান করেছিলেন

অক্ষরজ্ঞানও ছিল না অথচ সেইই ডিহি ইউনিয়ন পাবলিক লাইব্রেরিকে জমি দান করেছিলেন

কলাম ও ফিচার
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সাজেদ রহমান।। 

কখনও বিদ্যালয়ে যাবার সুযোগ পাননি তিনি, অক্ষরজ্ঞানও ছিল না স্বাভাবিকভাবেই, অথচ সেই তিনিই ডিহি ইউনিয়ন পাবলিক লাইব্রেরিকে সর্বপ্রথম একখন্ড জমি দান করেছিলেন। 

স্বশিক্ষিত এই ব্যক্তি আকবর আলী সরদার ডিহি ইউনিয়নের পাকশিয়া গ্রামের অধিবাসী ছিলেন। দারিদ্র সে সময় তাঁর সংসারকে অচল করে ফেলেছিল। অজন্মার দরুন সে বছর ঘরে খোরাকিরও অভাব ছিল তাঁর, সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ১৬ শতাংশ জমি বিক্রি করে সংসার চালাবেন। কিন্তু তিনি ওই জমি সংসারের প্রয়োজনে না বেচে লাইব্রেরির নামে লিখে দেন। আর হাসিমুখে লড়াই করেন অভাবের সাথে। 

১৯৮৯ সালে মরহুম আকবর আলী সরদারের সেই অবিস্মরণীয় অবদানের কথা ডিহি ইউনিয়ন পাবলিক লাইব্রেরি আজও স্মরণ করে। অশিক্ষিত এই মানুষটি সেদিন যেভাবে শিক্ষার আলোকবর্তিকা জ্বালাতে সাহায্য করেছিলেন তার দৃষ্টান্ত মেলা ভার। গত ১৮ এপ্রিল ছিল মরহুম আকবর আলী সরদারের ৩০তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৯০ সালে তিনি মারা যান। তাঁর প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি।

যশোরের শার্শা উপজেলার অজপাড়াগাঁয়ে ১৯৭৭ সালের ৩০ নভেম্বর গড়ে উঠেছিল ডিহি ইউনিয়ন পাবলিক লাইব্রেরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.