অবৈধ মাটিকাটা সিন্ডিকেট কেড়ে নিল সাংবাদিকের ক্যামেরা

অবৈধ মাটিকাটা সিন্ডিকেট কেড়ে নিল সাংবাদিকের ক্যামেরা

গণমাধ্যম জাতীয় খবর দেশের খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মাটিকাটা সিন্ডিকেটের সদস্যরা কেড়ে নিল সাংবাদিকের ক্যামেরা

এহসানুল হোসেন তাইফুর।। কেশবপুরে মাটি বহনকারী ভারী ট্রাক্টরের চাকায় সড়ক নষ্ট হওয়ার ছবি ধারণ করার সময় অবৈধ মাটিকাটা সিন্ডিকেট চ্যানেল এস এর কেশবপুর প্রতিনিধি ও দৈনিক যশোর পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আক্তার হোসেনের ক্যামেরা কেড়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

কপোতাক্ষ নদ সংলগ্ন উপজেলার মেহেরপুর বিল থেকে মাটি বিক্রির অভিযোগ পেয়ে সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে দূর্বৃত্তরা তাদের মিথ্যা মামলায় জড়ানোসহ ভয়ভীতি দেখিয়ে হুমকী প্রদর্শন করে। এ সময় চ্যানেল এস এর উপজেলা প্রতিনিধি আক্তার হোসেনের মটোরসাইকেলের পিছনে ঝুলিয়ে রাখা ব্যাগসহ ক্যামেরা নিয়ে নেয় দূর্বৃত্তরা।

ঘটনা উল্লেখ করে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। পুলিশ ক্যামেরা উদ্ধারের চেষ্টায় দু’দফা এলাকায় অভিযান করেছেন। এ খবর লেখার সময়ও ক্যামেরা উদ্ধার হয়নি বলে জানাগেছে। বিষয়টি জানাজানির পর কেশবপুরের সংবাদ কর্মীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এ ঘটনার পর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ওই এলাকায় মাটি বিক্রি সিন্ডিকেডের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করেন। তবে কাউকে পাওয়া যায়নি বলে যানা গেছে।

সাংবাদিক আক্তার হোসেন বলেন, সিন্ডিকেটের মাধ্যমে মেহেরপুর বিল থেকে মাটি কেটে নিয়ে দূর্বৃত্তরা অন্যত্র বিক্রি করছে এমন অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মাটি কাটার দৃশ্য ক্যামেরা বন্দি করা হয়। পরবর্তীতে ওই মাটি নিয়ে যাওয়া ট্রাক্টরের চাকায় পিচের রাস্তা ধসে যাওয়ার ছবি তোলার সময় দূর্বৃত্তরা সাংবাদিকদের দেখে নেওয়ার হুমকী দেয়। এ সময় উপজেলার মেহেরপুর গ্রামের উজির আলী গাজীর ছেলে আব্দুর রশিদ গাজী (৪২) সাংবাদিকদের অশ্লালীন ভাষায় গালিগালাজ করে। ওই সময় সেখানে সাংবাদিক আক্তার হোসেনের সঙ্গে আমাদের সময় পত্রিকার প্রতিনিধি এম এ রহমানও উপস্থিত ছিলেন।

এক পর্যায়ে দূর্বৃত্তরা মোটরসাইকেলের সাইড ক্লিপে ঝুলিয়ে রাখা হ্যান্ড ব্যাগসহ ডিএসএলআর ৭০০ ডি মডেলের ক্যামেরা ও চ্যানেল এস এর একটি মাইক্রোফোন নিয়ে চলে যায়। বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ক্যামেরা উদ্ধারের চেষ্টা চালায়।

গত ৮ মার্চ উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় পৌরসভাসহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মাটি বহনকারী ট্রাক্টরের চাকায় রাস্তা ধসে নষ্ট হওয়ার বিষয়টি উত্থাপন করা হয়। কেশবপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আশরাফ-উজ-জামান খান ওই বিষয়টি উত্থাপন করলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে মর্মে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বুধবার দুপুরে মেহেরপুর বিলে মাটিকাটার দৃশ্য ধারণসহ রাস্তা নষ্টের ছবি ও ভিডিও করার সময় সাংবাদিকদের উপর হামলা চালায় ওই সিন্ডিকেটের সদস্যরা। সাংবাদিক আক্তার হোসেন ঘটনা উল্লেখ করে কেশবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।
এ ব্যাপারে কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জসীম উদ্দীন বলেন, অভিযোগ তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।