কলকাতা রাজচন্দ্র দাসের ঘাট

কলকাতা রাজচন্দ্র দাসের ঘাট

কলাম ও ফিচার
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সাজেদ রহমান, সিনিয়র সাংবাদিক।।

কলকাতায় গেলে একবার হলেও ঘুরে আসি গঙ্গাতীরে বাবুঘাটে। এই ঘাট জুড়ে কত কথা ও কাহিনি। ইংরেজ আমলে কোনও ঘাটে সওদাগরের দল এসে নামে, তো কোনও ঘাটে মানুষজন নিজেদের ধর্মাচরণে ব্যস্ত থাকে। আবার কোনও ঘাটে শোনা যায় বিলিতি জাহাজের ভোঁ, তো কোনও ঘাটের নামই হয়ে যায় অন্য দেশের নামে। সে যাই হোক এমনই একটি ঘাটের নাম হল বাবু রাজচন্দ্র দাসের ঘাট।

বাবু ধর্মপ্রাণ, বাবু মহানুভব তাই এমন বাবুর নামে তৈরি ঘাটকে কলকাতার মানুষ ভালোবেসে বলতে লাগলো বাবুঘাট। ইনি কলকাতার জানবাজারের জমিদার শুধু নন, ইনি কলকাতার রানি রাসমণিদেবীর পরম কুলীন স্বামীও বটে। রানিমা তাঁর স্বামীর নামে এই ঘাটের নাম রেখেছেন রাজচন্দ্র দাসের ঘাট। বলতে গেলে হিন্দু ধর্মাচারীর কত হরেক প্রকার কাজ থাকে গঙ্গাকে সামনে রেখে। কেবল স্নানযাত্রাতেই হিন্দুর কাজ থেমে থাকে না।

কিন্তু এই ঘাটের মাথায় যে ফলক লেখা আছে সেটি অন্য কারণে গুরুত্বের দাবি রাখে। সেই ফলকটি সকলের চোখের আড়ালে অন্য রকম একটি বার্তা প্রকাশ করে আসছে। এই বার্তার আড়ালে রয়ে গেল এক সাদা চামড়ার সাহেবের দৃষ্টিভঙ্গি। সাহেবের নাম লর্ড উইলিয়াম বেন্টিঙ্ক। আঠারশো তিরিশের কলকাতা।

কলকাতা রাজচন্দ্র দাসের ঘাট

বেশ গুছিয়ে যখন গ্রেকো রোমান আর্কিটেকচার নকশায় ডরিক কলাম সঙ্গে করে গড়ে উঠল ঘাটের চাতাল আর ছাঁদ নকশা। তখন এই সাহেব বিস্তর প্রশংসা করে বললেন এমন কর্মকাণ্ডের জন্য অর্থ ব্যয়কে দরাজ হস্তে সমর্থন করা দরকার। আর এই প্রশংসার উল্লেখও রইল ঘাটের ফলকের শরীরে। এটি কলকাতার এমন একটি ঘাট যেখানে প্রথম যুগে বসানো ছিল এমন একটি কল যা দিয়ে গঙ্গা থেকে জল তুলে কলকাতার ওই অঞ্চলের রাস্তাকে পরিষ্কার করা হত। এমন খবর পেয়ে কে না সাধুবাদ জানাবেন।

তা ছাড়া সতেরশো চুরাশির কলকাতার মানচিত্র বলে দেয় যে এই ঘাটের এলাকা থেকেই গণ্য করা হত ডিহি কলকাতার দক্ষিণের সীমানাকে। অন্তত কর্নেল উডের মানচিত্র সেরকমই কথা বলে। কলকাতার একটি ঘাটের আড়ালে ধরা আছে ব্রিটিশ পতাকা যুগের বাঙালির কর্মকাণ্ডের এক বিশেষ বার্তা। যা সাহেবের মন জয় করেছিল অচিরেই। আর এই মন জয় করার হিসেব ধরা আছে ঘাটের পেডিমেন্টের ঠিক নিচে। বাবুঘাটে আজও লোকের ঢল নামে। কিন্তু ফলক নামায় লিখিত ইতিহাসটুকু ক’জনের আর পড়ে দেখার সময় আছে তা বলা বিস্তর মুশকিল।  ভিজিট করুন

বাইডেনের টিমের সঙ্গে যোগাযোগের খবর বানোয়াট, এটা হলুদ সাংবাদিকতা: ইরান

1 thought on “কলকাতা রাজচন্দ্র দাসের ঘাট

Comments are closed.