কলারোয়ায় সরকারী জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুলে শিক্ষকদের সংঘর্ষ

কলারোয়া সরকারী জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুলে শিক্ষকদের সংঘর্ষ

শিক্ষা জাতীয় খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কলারোয়া প্রতিনিধি: কলারোয়ার পৌরসদরের জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুলে শিক্ষকদের ২ গ্রুপে সংঘর্ষ হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ১১টার সময় প্রধান শিক্ষকের অফিসে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় অভিযোগ করেছেন।

কলারোয়া জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রব সংঘর্ষের বিষয়ে জানান, আমি অফিসে বসে শিক্ষা বোর্ডের কাজ করছিলাম এমন সময় স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা (শরীরচর্চা) মাহফুজা খাতুন আমাকে গালাগাল দিতে দিতে অফিসে ঢুকে। আমি অফিস সহকারী ডেকে তাকে অফিস থেকে বের করে দিতে বলি। এ সময় তার সঙ্গে স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রকিব ও সিনিয়র শিক্ষক মনিরুজ্জামান অফিসে প্রবেশ করে আমাকে এলোপাতাড়ি মারপিট করে আমার জামাকাপড় ছিড়ে দিয়েছে ও অফিসের বিভিন্ন ক্ষয়ক্ষতি করেছে। পরবর্তীতে স্কুলের অন্যান্য শিক্ষক ও অফিস ষ্টাফ আমাকে উদ্ধার করে।

সংঘর্ষের বিষয়ে স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা মাহফুজা খাতুন জানান, প্রধান শিক্ষক আব্দুর রব আমার বিরুদ্ধে ডিজি অফিসে অভিযোগ দিয়েছেন কেন আমি তার কাছে জানতে গেলে তিনি আমাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন। এ সময় আমার ডাক চিৎকারে স্কুলের অন্যান্য শিক্ষকরা আমাকে উদ্ধার করে।

সিনিয়র শিক্ষক মনিরুজ্জামান বলেন, আমাকে নিয়ে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও উদ্দ্যেশ্য প্রনদিত । প্রধান শিক্ষক আঃ রব আমার কাছ থেকে স্কুল জাতিয় করণ করার জন্য ৫২২০০ টাকা নিয়েছেন। আবার তিনি আরও ১৩০০০ হাজার টাকা দাবি করেন। আমি দিতে অস্বীকার করলে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন।

সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রকিব বলেন, ঘটনার সময় আমি ছিলাম না আমাকে সম্মান খুন্ন করার জন্য প্রধান শিক্ষক আঃ রব আমার নামে মিথ্যা বানোয়াট অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেন, প্রধান শিক্ষক আঃ রব স্কুল জাতীয় করণ করার জন্য প্রত্যেক শিক্ষকের নিকট থেকে কমপক্ষে ১ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এ বিষয় জানতে চাইলে তিনি বিভিন্ন সময় আমাকে কেচ করার হুমকি দিয়ে থাকেন।

কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মীর খায়রুল কবীর জানান, জিকেএমকে পাইলট হাইস্কুলে শিক্ষকদের ২ গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগ তদন্ত পূর্বক দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

অপরদিকে, গতকাল কলারোয়া রিপোর্টার্স ক্লাবে বিকাল ৫ টার সময় এক জনাকৃর্ণ পরিবেশে কলারোয়া সরকারী জি,কে,এম,কে পাইলট হাইস্কুলের সিনিয়র শিক্ষক মোঃ মনিরুজ্জামান সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষক মনিরুজ্জামান লিখিত বক্তব্য পাঠ করে বলেন, কলারোয়া সরকারী জি,কে,এম,কে পাইলট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আঃ রব স্কুল জাতীয় করণ করার নাম করে আমার কাছ থেকে প্রথমে ৫২২০০ টাকা নেয় এবং পূনরায় তিনি ১৩০০০ টাকা দাবী করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, স্কুল জাতীয় করার নামে প্রত্যেক শিক্ষকের নিকট থেকে প্রায় ১ কোটি টাকা আত্নসাত করেছেন। তিনি এ বিষয়ে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানান। সংবাদ সম্মেলনে এ সময় উপস্থিত ছিলেন অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুর রকিব ও সহকারী শিক্ষক মাহফুজা খাতুন।