কালেক্টর রেকস-এর যশোর পাবলিক লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠার কারণ

কালেক্টর রেকস-এর যশোর পাবলিক লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠার কারণ

কলাম ও ফিচার
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
কালেক্টর রেকস-এর যশোর পাবলিক লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠার কারণ
সাজেদ রহমান, সিনিয়র সাংবাদিক।।  যশোরে পাবলিক লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠার জন্য কালেক্টর রেকস অনুমান করা যায়, দুটি কারণে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলেন।
প্রথমত: তিনি সদ্য বিলেত থেকে এসেছেন। বিলেতে তখন পাবলিক লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠার আন্দোলন সফল হয়েছে ১৮৫০ খ্রিষ্টাব্দে পার্লামেন্টে পাবলিক লাইব্রেরি এ্যাক্ট পাশের মাধ্যমে। সে আন্দোলনে অনুপ্রাণিত তরুন রেকস নিজ কর্মস্থলে হয়ত পাবলিক লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠাতায় আগ্রহী হন।
কিন্তু কাজটি সহজ ছিল না। খোদ বৃটেনেই ১৮৫০ খ্রিষ্টাব্দে পাবলিক লাইব্রেরি এ্যাক্ট কেবলমাত্র ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস-এর জন্য প্রযোজ্য ছিল। পরবর্তী একশ’ বছর এই আইন কার্যকর হয়নি স্কটল্যান্ডে। ১৯৫৫ খ্রিষ্টাব্দে স্কটল্যাট পাবলিক লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠার আইনগত অধিকার পায়। সুতরায় পরাধীন ভারতে গণপাঠাগার প্রতিষ্ঠার কথা সবচেয়ে সাহসী স্বপ্নেও ভাবা যেত না।
দ্বিতীয়: বিলেত থেকে আসা সাহেব আর সামান্য ইংরেজি শিক্ষিত স্থানীয় কিছু মোসাহেবদের অবসর বিনোদনের জন্য সম্ভবত: রেকস যশোর পাবলিক লাইব্রেরি স্থাপনে সচেষ্ট হন।
কিন্তু সরকারি খরচে পাবলিক লাইব্রেরি স্থাপন! খোদ বৃটেনেই তখন তা সম্ভব ছিল না। সুতরাং কালেক্টর রেকস পাবলিক লাইব্রেরির ভবন নির্মাণ আর পুস্তক সংগ্রহের কাজে ব্যক্তিগত সাহায্য সংগ্রহ করেছিলেন। সেকালের বিত্তবান শ্রেণির কাছ থেকে। কয়েকজন নীলকর সাহেব এবং নলডাঙ্গা ও নড়াইলের জমিদার এই লাইব্রেরি প্রতিষ্ঠায় রেকস সাহেবকে অর্থ দিয়ে সাহায্য করেছিলেন। ১৮৫৪ খ্রিষ্টাব্দেই যশোর পাবলিক লাইব্রেরির নিজস্ব ভবন নির্মিত হয়। ভিজিট করুন