কেশবপুরে তিনটি নদী ও আটটি খাল খনন কাজের উদ্বোধন

ফিচার
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



কেশবপুরে তিনটি নদী ও আটটি খাল খনন কাজের উদ্বোধন

নিজস্ব সংবাদদাতা, কেশবপুর, ১০ মে।
কেশবপুরের জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য নদী ও খাল খননের প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে চলতি বছরে তিনটি নদী ও আটটি খাল খনন করা হবে। শুক্রবার সকালে কেশবপুরের বুড়–লিয়া-পাথরা খালের খনন কাজ শুরু করা হয়েছে। প্রায় ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে এই খাল খননের ফলে কেশবপুরের উত্তর-পূর্ব অঞ্চলের চারটি ইউনিয়নের জলাবদ্ধতা নিরসন হবে। শুক্রবার মঙ্গলকোট বুড়–লিয়া গেটের মাথায় আটটি খাল ও তিনটি নদী খননের কাজ উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজানূর রহমান।
পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, দীর্ঘ দিনের জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য কেশবপুরের সকল খাল খননের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে শ্রী নদীর সংযোগ বুড়–লিয়া-পাথরা খালের খনন কাজের শুরু করা হয়েছে। এই খাল খননের ফলে কেশবপুরের গৌরীঘোনা, সুফলাকাটি, পাঁজিয়া, মঙ্গলকোট ও বিদ্যানন্দকাঠি ইউনিয়ের বৃষ্টির পানি নদী দিয়ে বের হতে পারবে। খালের বুক উচুঁ হয়ে যাবার কারনে বিল ও এলাকার বৃষ্টির পানি বেরুতে পারত না। খাল খননের ফলে পানি সরতে পারবে এবং জলাবদ্ধতা নিরসন হবে। মঙ্গলকোট ইউনিয়নের মশিউর রহমান, আলহাজ শাহাদত হোসেন জোয়াদারসহ এলাকার কৃষকরা জানান, নদী ও খাল খনন করা হলে আমাদের চাষাবাদে উপকার হবে। নদী ও খাল খননের ব্যবস্থা নেয়ায় কেশবপুরের এমপি ইসমাত আরা সাদেককে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানূর রহমান জানান, বর্তমান সাংসদ ও সাবেক জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক কেশবপুরের জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য সকল খাল ও নদী খননের পদক্ষেপ নিয়েছেন। চলতি বছরে তিনটি নদী আপারভদ্রা, বুড়িভদ্রা ও হরিহর এবং ৮টি খাল খনন করা হবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেশবপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা আসাদউল্লাহ, ফিরোজ আহম্মেদ, বিদ্যানন্দকাঠি ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি কবির হোসেন, মনোজ তরফদার, মেম্বর কামাল হোসেন প্রমুখ।

কবির হোসেন
কেশবপুর
০১৭১১-২৫০৩৫৬। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.