কেশবপুরে পারিবারীক বিরোধে কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে জখম

কেশবপুরে পারিবারীক বিরোধে কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে জখম

দেশের খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কেশবপুরে পারিবারীক বিরোধে কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে জখম

কেশবপুরে পারিবারীক বিরোধের জের ধরে এক কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে মারাতœকভাবে জখম করা হয়েছে। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে ৩ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

উপজেলার টিটাবাজিতপুর গ্রামের ফারুকুজ্জামান সরদারের সাথে একই গ্রামের আব্দুল মাজিদ সরদারের ছেলে মনিরুজ্জামান মিলনগংদের পারিবারীক বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। যে কারণে ফারুকুজ্জামান সরদারের পরিবারকে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে আসছিল মজিদ সরদারের পরিবারের লোকজন।

ইরফান সেলিম ও তার বডিগার্ড মোহাম্মদ জাহিদকে এক বছর করে জেল

এরই জের ধরে গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯ টায় ফারুকুজ্জামান সরদারের ছেলে কেশবপুর সরকারি ডিগ্রী কলেজের এইসএসসি পরীক্ষার্থী শহিদুজ্জামান (১৯) বই কেনার জন্য বাড়ি থেকে কেশবপুর বাজারের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে হাসানপুর বাজারে পৌঁছলে আব্দুল মাজিদ সরদারের ছেলে মনিরুজ্জামান মিলন, তরিকুল ইসলাম ও তবিবুর রহমানসহ ৩/৪ জন যুবক পরিকল্পিতভাবে হাতে লাঠিসোটা নিয়ে শহিদুজ্জামানের গতিরোধ করে এলোপাতাড়িভাবে পিটিয়ে মারাত্নকভাবে জখম করে এবং সাড়ে ৭ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।

এলাকাবাসি তাকে উদ্ধার করে কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে আহত শহিদুজ্জামানের পিতা ফারুকুজ্জামান সরদার বাদি হয়ে মনিরুজ্জামান মিলনসহ ৩ জনকে আসামী করে কেশবপুর থানায় একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন।

অভিযুক্ত মনিরুজ্জামান মিলন বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা সঠিক না।

কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জসীম উদ্দীন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। -মশিয়ার রহমান। ভিজিট করুন