খবর লেখার আগে পড়া প্রয়োজন

জাতীয় খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

গৌরাঙ্গ নন্দী।। সাধারণভাবে

আমাদের দেশে পাঠক কম। তবে সাংবাদিকরা আরও কম পড়ে, অন্তত: আমাদের দেশে। রাজধানী শহরের আজকের তারকা সাংবাদিকদের মধ্যেও পঠন-পাঠন কম বলে শোনা যায়। অবশ্য, দীর্ঘদিন জেলা-বিভাগীয় শহর খুলনায় বসে মফস্বলী সাংবাদিকতার সুবাদে অনেক বড় বড় সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নে ভিমড়ি খেয়েছি। এতে আমারও একটি গড়পরতা ধারণা তৈরি হয়েছিল। তবে ব্যতিক্রমতো আছে, থাকতেই হয়। এটাই মনে হয়, আমি ভুলে গিয়েছিলাম; না-কি আমি ভিতরে ভিতরে অহঙ্কারী হয়ে উঠছি! তবে এজন্যে আমি কানমলাও খেয়েছি। ঘটনাটি বলি : কয়েকদিন আগে একজন সাংবাদিক-লেখক খুলনায় আসেন। তিনি সুন্দরবন উপকূলের এই জনপদ নিয়ে লিখতে চান। তাই খুলনায় এসেছেন। আমার সঙ্গেও তিনি দেখা করেন, কথা হয়। ওই যে, আমিও তাঁকে হয়তো গড়পরতা ভেবেই প্রশ্ন করে বসি, সুন্দরবন নিয়ে কি পড়েছেন? কোথায় কোথায় গিয়েছেন? না, তিনি ক্ষেপে ওঠেননি। একটু হয়ত হকচকিয়ে গিয়েছিলেন, পরে স্বাভাবিকভাবেই বলতে থাকেন কি কি বই পড়েছেন, কোথায় কোথায় গিয়েছেন। তা সেই সতীশচন্দ্র মিত্র হতে শুরু করে আধুনিককালের অমিতাভ ঘোষ পর্যন্ত এবং সুন্দরবন ঘেঁষা লাউডোব, খেজুরিয়া, ঢাংমারি গ্রামগুলো ঘুরে বেড়ানোর কথা। তাঁর বাংলা লেখার ধরণ ঈর্ষা জাগানিয়া। বলেনও ভালো। গড়পরতা ভেবে আমি নিজে খুবই লজ্জিত। আমার এই আহাম্মুকি ঘটনাটি খুবই তাড়া করে ফিরছে, নিজের মধ্যে সঙ্কোচ-এর মেঘ গাঢ় হচ্ছে। সকাল-বিকেল নিজেই নিজের কান মলছি। এটি মনে হয় অহঙ্কারী হয়ে ওঠার সাজা!!!!

Leave a Reply

Your email address will not be published.