পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে মধুপল্লীর সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন করা হবে

জাতীয় খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব সংবাদদাতা, কেশবপুর, ২ আগস্ট।। 

পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে কেশবপুরে মাইকেল মধুসূদন দত্তের জন্মগৃহ মধুপল্লীর আরও উন্নয়ন করা হবে। শুক্রবার দুপুরে মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের জন্মস্থান কেশবপুরের সাগরদাঁড়ির মধুপল্লীর বিগত বছরে সম্পাদিত উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে এসে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রাণলয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ হান্নান মিয়া এ কথা বলেছেন।
তিনি বলেন, কপোতাক্ষ নদের বিদায় ঘাটের দু‘পাশে সমতল আকারে পাকাকরণ করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। যাতে এখানে আগত পর্যটকরা নদীতে ভ্রমণ, চিত্তবিনোদনের জন্যে ছাতার আকারে নির্মিত ছাউনীর নিচে বিশ্রাম নিতে পারবেন। এছাড়া  মধুপল্লীর সম্প্রসারণ, কবির বাসগৃহ পুনসংস্কার, সরকারি কর্মকর্তাদের আবাসিক ভবন নির্মাণসহ ব্যাপক উন্নয়ন করার পরিকল্পপনা নেয়া হয়েছে। মধুপল্লীর উন্নয়নে যা যা করার দরকার তা করা হবে। আগামী রবিবার বেসরকারি বিমান পরিবহন ও সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সভায় উপস্থাপন করা হবে বলে জানান। 
শুক্রবার তিনি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের আওতাধীন কেশবপুরের ভরত রাজার দেউল, মির্জানগর হাম্মাম খানা, শেখপুরা জামে মসজিদ ও সাগরদঁাড়ির মধুপল্লীর কবির বাসগৃহ, পিকনিক স্পট, মধুসূদন মিউজিয়াম পরিদর্শন করেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের খুলনা বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক আফরোজা খান মিতা, কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজানূর রহমান, খুলনা বিভাগের সহকারি প্রত্নতত্ত্ব প্রকৌশলী খন্দকার জিল্লুর রহমান, কেশবপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি আশরাফ-উজ-জামান খান, সাগরদঁাড়ি মধুপল্লীর কাস্টোডিয়ান ফজলুল করিম প্রমুখ।
কবির হোসেন
কেশবপুর
০১৭১১২৫০৩৫৬ 

Leave a Reply

Your email address will not be published.