বিএনপির দুই কমিশনার প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষ : আহত ১৫

বিএনপির দুই কমিশনার প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষ : আহত ১৫

জাতীয় খবর দেশের খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
বিএনপির দুই কমিশনার প্রার্থীর মধ্যে সংঘর্ষ : আহত ১৫
মঙ্গলবার রাতে কেশবপুরে বিএনপি দুই কমিশনার প্রার্থীর মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায় কেশবপুর পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের সদ্য নির্বাচিত কাউন্সিলর আফজাল হোসেন বাবু ও পরাজিত প্রার্থী কুতুবউদ্দীন বিশ্বাসের কর্মী সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষে উভয় পক্ষের নারী পুরুষ সহ প্রায় ১৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের কেশবপুর ও খুলনা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী জানান, শহরের একটি দোকানের প্রথমে কথা কাটাকাটি নিয়ে আফজাল এবং কুতুবের মধ্যে সংঘর্ঘ হয়। এতে একে অপরকে মারপিট করে উভয় জনই আহত হয়। এরপর আফজাল হোসেন তার লোকজন নিয়ে কুতুবের বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় হামলাকারীরা কুতুবের বাড়ির আসবাবপত্র এবং তার স্ত্রী ও কণ্যাকে মারপিট করে আহত করে। এছাড়া কুতুরে পক্ষের লোক মনিরুজ্জান ও তার ছেলে মাসুম পারভেজ সোহেলের বাপ হাত ভেঙ্গে দেয়। তাদের কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
ঘটনার পর রাতে আফজাল হোসেন বাবু সহ  তার পক্ষের কয়েকজনও কেশবপুর হাসপাতালে ভর্তি হয়। এদের মধ্যে মারাত্নক আহত বায়সা গ্ৰামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা মিন্টু হোসেনকে রাতেই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।
ঘটনার পর কেশবপুর থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। রাতে থানায় অভিযোগে করা হয় উভয় পক্ষ থেকে। এরপর রাত ১২টার দিকে হাসপাতালের সামনে চায়ের দোকান থেকে সদ্য নির্বাচিত কমিশনার আফজাল হোসেনকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
বুধবার দিন ব্যাপী সদ্য নির্বাচিত মেয়র রফিকুল ইসলাম উভয় পক্ষের সাথে বার বার আলোচনা করে বিকেল ৩টায় পৌর সভায় এক সভায় বসে সন্ধ্যা ৬টায় মিমাংসা করে দেন।
এ ব্যাপারে বুধবার সন্ধ্যায় থানা ওসি জসীম উদ্দিন জানান, মেয়র সাহেব থেকে উভয় পক্ষর সাথে মিমাংসা করে দিয়েছেন। তার মিমাংসাপত্র জমা দেয় কোন মামলা হচ্ছে না।