মশা তাড়ানো কয়েলের আগুনে মারা গেলো কৃষকের ৩টি গরু ও ২টি ছাগল

মশা তাড়ানো কয়েলের আগুনে মারা গেলো কৃষকের ৩টি গরু ও ২টি ছাগল

জাতীয় খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মশা তাড়ানো কয়েলের আগুনে মারা গেলো কৃষকের ৩টি গরু ও ২টি ছাগল

আ.শ.ম. এহসানুল হোসেন তাইফুর।। গোয়াল ঘরে মশা তাড়াতে জ্বালানো কয়েলের (সাজাল) আগুনে কেশবপুরে আব্দুস সাত্তার মোড়ল নামে এক কৃষকের তিনটি গরু ও দু’টি ছাগল পুড়ে মারা গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার গভীর রাতে উপজেলার চাঁদড়া গ্রামে।

এ সময় পুড়ে আহত হয় আরও ২টি গরু। এর মধ্যে একটি গরু জবাই করে দেওয়া হয়েছে। অন্যটির চিকিৎসা চলছে। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পানি দিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার আগেই গোয়াল ঘর ও গোয়াল ঘর লাগোয়া বসত ঘর ভষ্মিভূত হয়েছে। ততক্ষণে গোয়াল ঘরে থাকা ৩টি গরু ও ২টি ছাগল পুড়ে মারা যায়। এ ঘটনায় ওই কৃষকের প্রায় আড়াই থেকে তিন লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে পরিবারের দাবি।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চাঁদড়া গ্রামের মাহমুদ আলী মোড়লের ছেলে কৃষক আব্দুস সাত্তার মোড়লের বসতঘর লাগোয়া গোয়াল ঘরে মশা তাড়াতে কয়েল (সাজাল) জ্বালানো হয়। ওই সাজালের আগুনে গোয়াল ঘরে আগুন লাগে। আগুন দ্রুত পুরো গোয়াল ঘরসহ গোয়াল ঘর লাগোয়া বসত ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই আগুন পুরো গোয়াল ও পার্শ্ববর্তী থাকার ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এতে গোয়াল ঘরে থাকা ৩টি গরু ও ২টি ছাগল পুড়ে মারা যায়। আরও ২টি গরু আগুনে পুড়ে গুরুতর আহত হয়েছে।

কৃষক আব্দুস সাত্তারের ভাই নজরুল ইসলাম বলেন, রবিবার রাতের আব্দুস সাত্তারের গোয়াল ঘরে কয়েল জ্বালিয়ে (সাজাল) দেওয়া হয়। রবিবার গভীর রাতে ওই মশার কয়েলের আগুন থেকে প্রথমে গোয়াল ঘরে রাখা কাঠের গুড়ায় (ভূষি) আগুন ধরে। কোনও কিছু বুঝে ওঠার আগেই আগুন পুরো গোয়াল ও পার্শ্ববর্তী থাকার ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় বসত ঘরে ঘুমানো কৃষক আব্দুস সাত্তার মোড়লের মাথার বালিশে আগুন লেগে গেলে তার ঘুম ভেঙ্গে যায়। ওই সময় তার মাথার কিছু চুলও পুড়ে গেছে।

এ সময় তার ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে পানি দিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে গোয়াল ঘরে থাকা ৩টি গরু (একটি গাভী, একটি বকনা, একটি এড়ে বাছুর) ও ২টি খাসি ছাগল পুড়ে মারা যায়। আরও ২টি গরু আগুনে পুড়ে গুরুতর আহত হয়েছে। এর মধ্যে একটি গরু জবাই করে দেওয়া হয়েছে। অন্যটির চিকিৎসা চলছে। আগুন লাগার ঘটনায় ওই কৃষকের প্রায় আড়াই থেকে তিন লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। আগুনে পুড়ে গরু, ছাগল ও গোয়াল ঘর পুড়ে যাওয়ার ঘটনায় আব্দুস সাত্তার মোড়ল মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ায় স্যালাইন দেওয়ায় সে এখন কিছুটা সুস্থ। মারা যাওয়া গরু ও ছাগলগুলো মাটি চাপা দেওয়া হয়েছে। ভিজিট করুন

মাইকেল মধুসূদন দত্তর তেমন কোন স্মৃতিচিহ্নের সংরক্ষণ হয়নি কলকাতায়

1 thought on “মশা তাড়ানো কয়েলের আগুনে মারা গেলো কৃষকের ৩টি গরু ও ২টি ছাগল

Comments are closed.