মামলা তুলে না নেওয়ায় বাদীর বসতবাড়িতে হামলা, মারপিট ও ভাংচুর

মামলা তুলে না নেওয়ায় বাদীর বসতবাড়িতে হামলা, মারপিট ও ভাংচুর

জাতীয় খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মামলা তুলে না নেওয়ায় বাদীর বসতবাড়িতে হামলা, মারপিট ও ভাংচুর

আব্দুল্লাহ আল ফুয়াদ, কেশবপুর : কেশবপুরের হাসানপুর ইউনিয়নের টিটাবাজিতপুর গ্রামে নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনায় মামলা করে বিপাকে পড়েছে এক নারী। মামলা তুলে নিতে অপারগতা প্রকাশ করায় আসামীর ওই মামলার বাদীর বসত বাড়ি ভাংচুর ও মারপিট করে আহত করেছে। খবর পেয়ে কেশবপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এবিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার টিটাবাজিতপুর গ্রামের আবুল কাশেম সরদারের মেয়ে আমেনা খাতুনকে শ্লীলতাহানী, মারপিট ও নির্যাতনের ঘটনায় গত ১১ নভেম্বর যশোর আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করা হয়। যার নং-৬৩/২০। এ মামলা তুলে নিতে আসামী একই গ্রামের আলমগীর হোসেন, ওজিয়ার রহমান, আব্দুল মজিদ বিভিন্ন ভাবে বাদী আমেনা খাতুনকে হুমকি প্রদান করে আসছে।

মামলা তুলে নিতে অপারগতা প্রকাশ করায় রোববার সকালে বাদীর বাড়িতে ঢুকে হামলা, মারপিট ও ভাংচুর করে আসামীরা। এ হামলার ঘটনার বাদীর পিতা আবুল কাশেম সরদার (৫৪) , দাদিমা রিজিয়া খাতুন (৬৫) ও ভাই সোহাগ হোসেন (২৬) আহত হয়েছে। খবর পেয়ে কেশবপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এবিষয়ে কেশবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

সকল অভিযোগ অস্বীকার করে ওজিয়ার রহমান বলেন, একটি পক্ষের ইন্ধনে আমাদের সুনাম ক্ষুন্ন করতে নিজেদের বাড়ি নিজেরা ভেঙ্গে আমাদের দোষারোপ করে বানোয়াট অভিযোগ করা হয়েছে।

কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জসীম উদ্দিন বলেন, এবিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।  ভিজিট করুন

ঝিকরগাছা থেকে হারিয়ে গেছে অমৃতবাজার রেল স্টেশন