শিশু ধর্ষণের চেষ্টায় মসজিদের ইমাম গ্রেফতার

শিশু ধর্ষণের চেষ্টায় মসজিদের ইমাম গ্রেফতার

জাতীয় খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

কেশবপুরে এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টাকারী মসজিদের ঈমামকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসি। ওই ইমান ৬ বছরের শিশুটিকে মসজিদের পিছনের বারান্দায় ধর্ষণের চেষ্টা করছিল। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার সন্ধ্যায় পৌরসভার মধ্যকুল এলাকায়। এ ঘটনায় শিশুটির পিতা আলী হামজা বাদি হয়ে থানায় মামলা করেছে। পুলিশ শিশুটির ডাক্তারি পরিক্ষা করিয়েছে। বিচারিক আদালত তার ২২ ধারায় জবাবন্ধী রেকর্ড করেছে।

থানা পুলিশ জানায়, পৌরসভার ভবানীপুর এলাকার খোরশেদ গাজীর ছেলে হাফেজ ইমরান হোসেন (৩০) দীর্ঘদিন ধরে পৌরসভার মধ্যকুল এলাকার প্রাইমারী স্কুল সংলগ্ন জামে মসজিদে ইমামের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। পাশাপাশি প্রতিদিন বিকেলে তিনি মসজিদ এলাকার আশপাশের শিশুদের মক্তবে আরবি শিক্ষা দিয়ে থাকেন।

সোমবার সন্ধ্যায় মক্তব শেষে তিনি ৬ বছরের এক শিশুকে কৌশলে আটকিয়ে রেখে তার শয়ন কক্ষে নিয়ে ধর্ষণের করেন। পরে শিশুটি তার মায়ের সাথে সমস্ত ঘটনা খুলে বললে এক পর্যায়ে উত্তেজিত জনতা ওই লম্পট ইমামকে গণধোলাই দিয়ে ২ ঘন্টা একটি গাছের সাথে বেঁধে রাখে।

খবর পেয়ে রাত আটটায় কেশবপুর থানার এস আই তাপস ঘটনাস্থল থেকে হাফেজ ইমরানকে গ্রেফতার করে। এস আই তাপস জানান, আলামত হিসেবে শিশুটির পাজামা জব্দ করা হয়েছে। মঙ্গলবার শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হয়েছে। এরপর শিশুটিকে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। বিচারিক আদালতে শিশুটি ঘটনার বর্ণনা দেয়।

কেশবপুর থানার ওসি জসিমউদ্দীন বলেন, আটক ইমরান হোসেনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা হয়েছে। মামলা নং- ২। মঙ্গলবার তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।