সারা বিশ্বে এক বছরে নিহত হয়েছেন মোট ৫০ জন সাংবাদিক

সারা বিশ্বে এক বছরে নিহত হয়েছেন মোট ৫০ জন সাংবাদিক

গণমাধ্যম আন্তর্জাতিক
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সারা বিশ্বে এক বছরে নিহত হয়েছেন মোট ৫০ জন সাংবাদিক

এক সময় সে সব দেশে যুদ্ধ বা সংঘাত চলছে, সেখানে সাংবাদিকতার ঝুঁকি অনেক বেশি ছিল। কিন্তু রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স (আরএসএফ)-এর সর্বশেষ প্রতিবেদন বলছে ভিন্ন কথা।

রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ সালে সারা বিশ্বে নিহত হয়েছেন মোট ৫০ জন সাংবাদিক। সবারই মৃত্যুর কারণ সাংবাদিকতা। ২০২০ সালের ১৫ জানুয়ারি থেকে ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে মৃত্যু হয় তাদের। 

২০১৯ সালে সংখ্যাটা ছিল ৫৩। তবে মনে রাখা দরকার, ২০২০ সাল জুড়ে করোনার কারণে সাংবাদিকরা মাঠ পর্যায়ে তেমন কাজই করতে পারেননি।

২০১৬ সালে নিহত সাংবাদিকদের শতকরা ৫৮ ভাগই ছিল যুদ্ধ চলছে এমন দেশগুলোতে। ২০২০ সালে সেরকম দেশে সাংবাদিক হত্যার হার কমে হয়ে যায় ৩২ ভাগ। অর্থাৎ, যুদ্ধের লেশমাত্র নেই এমন দেশগুলোতেই পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রাণ দিতে হয় বাকি ৬৮ ভাগ সাংবাদিককে।পালন করতে গিয়ে প্রাণ দিতে হয় বাকি ৬৮ ভাগ সাংবাদিককে।সাংবাদিকদের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক পাঁচটি দেশের তালিকায় সবার ওপরে আছে মেক্সিকো। ২০২০ সালে সবচেয়ে বেশি আট জন সাংবাদিক নিহত হয়েছেন সে দেশে। প্রত্যেকেই অপরাধ এবং দুর্নীতি বিষয়ক প্রতিবেদন নিয়ে কাজ করছিলেন। 

তারপরই রয়েছে ভারত, ফিলিপাইন্স আর হন্ডুরাস। ভারতে মারা গেছেন চার জন আর ফিলিপাইন্স এবং হন্ডুরাসে তিন জন করে।

আফগানিস্তান জার্নালিস্টস সেফটি কমিটির প্রধান নাজিব শরিফি জার্মান গণমাধ্যম ডয়চে ভেলেকে বলেন, আজকাল মনে হয় সব সাংবাদিকই জীবনের হুমকিতে রয়েছেন। এখনকার মতো এত খারাপ পরিস্থিতি আগে কখনো ছিল বলে আমার মনে হয় না।

এছাড়া সাংবাদিকদের জন্য আরেক বিপজ্জনক দেশ ইরাকে ২০২০ এ শুধু সরকারবিরোধী বিক্ষোভ কাভার করতে গিয়েই প্রাণ হারিয়েছেন কমপক্ষে তিনজন সাংবাদিক।ইরাকের প্রতিবেশী ইরান ২০২০ সালে সাংবাদিক রুহোল্লাহ জামকে ফাঁসি দিয়েছে। প্যারিস প্রবাসী এ সাংবাদিক ইরাকে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে তাকে অপহরণ করা হয়। পরে তার বিরুদ্ধে সরকারবিরোধী আন্দোলনে মদত দেয়ার অভিযোগ তোলে ইরান সরকার। সেই অভিযোগেই ফাঁসি দেয়া হয় তাকে।

পাকিস্তানে সাংবাদিকদের দুরবস্থা নিয়েও আশঙ্কা প্রকাশ করেছে রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স। ২০২০ সালের মে মাসে সাংবাদিক জুলফিকার মান্দ্রানির মৃতদেহ তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। জুলফিকারের দেহে নির্যাতনের চিহ্ন দেখা গেছে। নিহত এই সাংবাদিকের স্বজনেরা মনে করেন, পুলিশ বিভাগের দুর্নীতি নিয়ে তিনি যে তদন্ত করছিলেন, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তার সম্পর্ক থাকতে পারে।

২০২০ সালে যে ৫০ জন সংবাদকর্মীকে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রাণ দিতে হয়, তাদের ৮৪ ভাগই পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শিকার। ২০২০ সালের ২৯ ডিসেম্বর প্রকাশ করা রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী সারা বিশ্বে সাংবাদিকদের পরিকল্পিতভাবে হত্যার প্রবণতাও বেড়েছে, কারণ, ২০১৯ সালে এমন হত্যার ঘটনা ছিল ৬৩ শতাংশ।

২০২০ সালে মোট ৩৮৭ জান সাংবাদিককে বিভিন্ন দেশে গ্রেপ্তার বা জিম্মি করা হয়। ৩৮৭ জনের মধ্যে নিখোঁজও রয়েছেন কয়েকজন।

এছাড়া ২০২০ সালে করোনা-সংক্রমণেও মারা গেছেন অনেক সাংবাদিক। তাদের কেউ কেউ পুলিশ হেফাজতে বিনা চিকিৎসায় মারা যান। রাশিয়া, মিশর এবং সৌদি আরবের এমন তিন সাংবাদিকের উল্লেখ রয়েছে প্রতিবেদনে। ওই তিনজন পেশা সংশ্লিষ্ট কারণে গ্রেপ্তার হওয়ার পর চিকিৎসার সুযোগ চেয়েও পাননি। তিনজনই পরে করোনার শিকার হয়ে মারা যান। সূত্র: ডয়েচে ভেলে, রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স। ভিজিট করুন

টিকাকেন্দ্রে ভ্যাকসিন নিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

1 thought on “সারা বিশ্বে এক বছরে নিহত হয়েছেন মোট ৫০ জন সাংবাদিক

Comments are closed.