স্কুলমাঠ থেকে হেলিপ্যাড অপসারণ দাবি

স্কুলমাঠ থেকে হেলিপ্যাড অপসারণ দাবি

জাতীয় খবর
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

স্কুলমাঠ থেকে হেলিপ্যাড অপসারণ দাবি

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি: কেশবপুর আসনে সংসদ উপনির্বাচনের আগে আইনশৃঙ্খলা নিয়ে মতবিনিময়ের জন্য গত ১১ জুলাই প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা হেলিকপ্টারে কেশবপুরে আসেন। সে সময় কেশবপুর সরকারি পাইলট উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের খেলার মাঠে একটি হেলিপ্যাড তৈরি করা হয়।

প্রায় চার মাস পেরিয়ে গেলেও হেলিপ্যাডটি অপসারণ না হওয়ায় মাঠে সুষ্ঠুভাবে খেলাধুলা করা সম্ভব হচ্ছে না। এ কারণে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ খেলোয়াড়দের ভেতর তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। তারা হেলিপ্যাডটি অপসারণ করে মাঠ খেলার উপযোগী করার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

সরেজমিন মাঠে গিয়ে নিয়মিত খেলাধুলা করতে আসা ওই বিদ্যালয়সহ আশপাশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী শামীম হোসেন, আমানুল্লাহ, সিরাজুল ইসলাম, রনি হোসেন, আল আমিন, শিমুল, মাহাবুর রহমান, জিহাদ হোসেন ও ইমনের সঙ্গে কথা হলে তারা জানায়, মাঠের ভেতর ইট থাকায় আমরা দীর্ঘদিন ধরে ঠিকভাবে খেলাধুলা করতে পারছি না।

ওই ইটের কারণে খেলার সময় পায়েও ব্যথা লাগে।কেশবপুর সরকারি পাইলট উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ আছাদুজ্জামান বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সিইসির হেলিকপ্টারে আগমন উপলক্ষে মাঠে হেলিপ্যাড তৈরি করা হয়েছিল। অপসারণ করার দায়িত্ব তাদের। আমি এ বিষয়ে তাদের জানিয়েছি।

উপজেলা প্রকৌশলী অধিদপ্তরের সার্ভেয়ার মনিরুল ইসলাম জানান, ইউএনওর নির্দেশে স্থানীয় কাজী ব্রিকস থেকে ২৬ হাজার ইট নিয়ে ৩০ ফুট ব্যাসার্ধের হেলিপ্যাড ও সেখান থেকে অডিটোরিয়াম অভিমুখে সংযোগ সড়ক তৈরির জন্য ১২০ মিটার লম্বা ও ৩ মিটার চওড়া ইটের রাস্তা করা হয়। টাকা পরিশোধ না হওয়ার কারণে ইটগুলো অপসারণ হচ্ছে না।

কেশবপুর উপজেলা প্রকৌশলী মুনছুর রহমান বলেন, হেলিপ্যাড ও সংযোগ সড়ক তৈরি করতে প্রায় সাড়ে তিন লাখ টাকা ব্যয় হয়।এ ব্যাপারে ইউএনও নুসরাত জাহানের কাছে জানতে চাইলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে চাননি। ভিজিট করুন

নৌবাহিনীর যুদ্ধ জাহাজসহ ৫টি আধুনিক জাহাজ কমিশনিং করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা